এমিনেম উপখ্যান

‘এমিনেম ‘ এই শব্দটি পড়ার পরই হয়তো আপনাদের অনেকের ব্রু কুচকিয়ে গেছে বিরক্তিতে। আমারও কুচকাতো ২ মাস আগে। আমি Rap গান ৩ মাস আগেও পছন্দ করতাম না। এমনকি যারা শুনতো বলে মনে হতো তাদেরকে মানসিক ভাবে বিকৃত বলে মনে হতো। আপনি হয়তো লক্ষ্য করে থাকবেন যারা এই ক্যাটাগরির গান শুনে থাকে তাদেরকে ‘rapist ‘ এর মতোই লাগে অর্থাৎ ‘ধর্ষকের ‘মতো। আমি বলতে গেলে অবসর থাকলেই গান শুনি, রবীন্দ্রসংগীত থেকে কালের হার্ড রক, বাদ রাখি নাই মোটামুটি পরিচিত কোন ক্যাটাগরি। বাদ ছিল মোটে দুটি, ‘pure rap ‘ আর ‘heavy metal ‘। হেভী মেটালের ধুম ধাম এখনো কানে তুলে অভ্যস্ত করতে পারিনি নিজেকে তবে Rap গানে কি আছে এমন তা আবিষ্কার করতে যেয়ে এমিনেমের বিশাল বড় ভক্ত হয়ে গেছি। রবীন্দ্রসংগীত নিয়ে কলম হাতে নেই নি কখনো, কিন্তু এমিনেমের জন্য কলম হাতে নিলাম।

কিভাবে এবং কেন তার একজন অন্ধ ভক্ত হয়েছি তা নিয়ে আজকের এবং আগামীতে কিছু পোস্ট দিব আমি। আপনাদের যদি গালিগালাজ করতে ইচ্ছা করে তাহলে মন খুলে করতে পারেন, আমি কিছুই বলবো না। কারণ এমিনেমের প্রতিটি গানের গালিগালাজ শুনতে শুনতে অভ্যস্ত হয়ে গেছি। তাই খারাপ হয়তো লাগবে না আপনাদের দেশী গালিগালাজকে।
…………………………………………………………………………………………

……………………………………..।এমিনেম।…………………………………….
মার্শাল ব্রুশ মেদারস(Marshall Bruce Mathers)জন্ম ১৭ অক্টোবর ১৯৭২ সালে।তার মঞ্চ নাম হল – এমিনেম(Eminem),একজন আমেরিকান ইংরেজি র্যাপার,রেকড প্রযোজক এবং অভিনেতা। এমিনেম অতি তাড়াতাড়ি বিখ্যাত হয়ে যান তার দ্বিতীয় অ্যালবাম(The Slim Shady LP) দিয়ে যা গ্রেমি পুরস্কার পেয়েছিল বেস্ট র্যাপার অ্যালবাম হিসেবে।এরপরের অ্যালবাম ( The Marshall Mathers LP) আমেরিকার সঙ্গীত ইতিহাসের মধ্যে সবচেয় তাড়াতাড়ি বিক্রিত অ্যালবাম হিসেবে খ্যাতি অর্জন করে।এমিনেমের একটা গ্রুপ রয়েছে যার নাম হল D12। এমিনেম বিশ্বের অন্যতম সেরা এলবাম বিক্রি হওয়া শিল্পী এবং ২০০০-১০ এর সেরা এলবাম বিক্রি হওয়া শিল্পী। তাকে কালের অন্যতম সেরা শিল্পী হিসেবে তালিকাভুক্ত করা হয়। অনেক ম্যাগাজিন তাকে এই তালিকায় স্থান দিয়েছে এবং Rolling Stone ম্যাগাজিন তাকে ৮২ নং স্থান দিয়েছে সেরা ১০০ জন এর তালিকায়। ঐ ম্যাগাজিন ই তাকে ‘দ্যা কিং অফ হিপ -হপ ‘ উপাধি দিয়েছে। D12 এর সাথে তার Bad Meets Evil কাজটি সহ তিনি ১০ টি ১ম স্থান অধিকারি অ্যালবাম পেয়েছেন Billboard 200 এ।তিনি ৪কোটি ২০ লক্ষ গান বিক্রি করেছেন এবং প্রায় ৪ কোটি ১৫ লক্ষ এলবাম বিক্রি করেছেন বিশ্বব্যাপী। এমিনেম প্রথম সবার নজর কারে ১৯৯৯ সালে তার প্রথম এলব্যাম ‘The Slim Shady LP ‘ দিয়ে। ‘The Slim Shady LP ‘ সহ তার পরবর্তী দুটি এলব্যাম, ‘The Marshall Mathers LP ‘, এবং ‘The Eminem Show ‘, তিনটাই গ্র্যামী এওয়ার্ড জিতে নেয়, যা এমিনেম কে পর পর তিনবার ‘সেরা র্যাপ এলব্যাম ‘গ্র্যামী জয়ী প্রথম এবং একমাত্র শিল্পী হিসেবে পরিণত করে।

এমিনেমের বয়স যখন ১৮ মাস তখন তার বাবা তার মাকে ফেলে চলে যায়। এমিনেম পরবর্তীতে একা একাই তার মায়ের কাছে বড় হয়। তার যখন ১২ বছর তখন তার মা জীবিকার সন্ধানে বিভিন্ন জায়গায়, শহরে ঘুরে বেড়ায় যা এমিনেমের মনস্তাত্ত্বিক জগতে এফেক্ট ফেলায়। সে বড় হয় বন্ধু বিবর্জিত পরিবেশে। সে একা একা থাকাকালীন সময়ে গল্প বলার প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠে, তাই সে মিউজিকে আসার আগে কমিক আর্টিস হওয়ার স্বপ্ন বুনেছিল। এগারো বছর বয়সে তার আংকেল ‘রুনি ‘ নেলসন এর কাছ থেকে একটা মিউজিক এলব্যাম উপহার পাবার পর সে মিউজিকে আগ্রহী হয়ে উঠে। সে তার এই আঙ্কেল কে খুব ভালোবাসতো, তাই তার মৃত্যুর পর সে তার শরীরে ‘রুনি ‘ নামে ট্যাটু আকায় এবং অনেক গানে তাকে মেনশন করে থাকে। পরবর্তী পোস্টে এ বিষয়গুলো সহ আরো কিছু এমিনেম ফ্যাক্টস তুলে আনার চেষ্টা করবো। আপাতত এই গানটি শুনে দেখতে পারেন।

Airplane part 2 :
এই গানটি এমিনেম এর টপলিস্টে নেই কারণ এটি এটা এমিনেমের মৌলিক গান নয়। এটা হচ্ছে B.O.B এর ‘Airplane ‘ এর সিকুয়্যাল গান, যেটা ফিচারিং করেছে William এর সাথে এমিনেম। Airplane part 2 পরবর্তী সময়ে Grammy এর সেরা pop ‘collaboration with vocals ‘ সেকশনে নমিনেশন পেয়েছিল। আপনারা হয়তো ভাবছেন এমিনেম এর গান না হওয়া সত্ত্বেও কেন এটাকে এতো গুরুত্ব দিচ্ছি, ‘গাইতে এসেছি শিবের গান, বলে যাচ্ছি রামকথা ‘। দুটো কারণে এই রামকথা বলছি।
১. Rap সং অনেকেই পছন্দ করে না। যেহেতু এই গানটি পুরোপুরি Rap নয় বরং একটি কোলাবরেটেড গান তাই অনেকেরই পুরোপুরি খারাপ লাগবে না।
আর ২ নং কারণটি বলার আগে আমি গানটির বিষয়বস্তু নিয়ে কিছু বলতে চাই। গানটি আমাদের গোপণ স্বপ্ন লালন করার প্রতি জোড় দিয়েছে। ৪ শিল্পীর সমন্বয়ে যেহেতু গানটি করা, তাই এই ৪ জন নিজেদের স্বপ্নের কথা বলেছেন নিজেদের জীবণের আলোকে, এবং তারা যদি স্বপ্ন না দেখত তাহলে কি হতো তা ও বলেছে। শেষ পার্টে এমিনেম যখন তার কথাগুলো বলে তখন আপনি দেখতে পারবেন তার ‘এমিনেম ‘ হয়ে উঠার গল্পটি। কি হতো যদি সে সুযোগ পেত তার বাবার ছায়া মাথায় নিয়ে বড় হবার, যদি সুযোগ পেত অন্য ১০ টা ছেলেমেয়েদের মতো শৈশব কাটানোর, সামাজিক ভাবে বেড়ে উঠার বা থাকতো কেউ এমন বন্ধু বলে ডাকার…
এরকম কিছু ব্যথার কথা এমিনেম বলেছে তার চিরচারিত ভাষায়। গানটি ডাউনলোড করতে পারবেন নিচের এড্রেস থেকে :

Click This Link

আর লিরিকস্ পাবেন নিচের এড্রেসে :
Click This Link

গান ভালো লাগুক আর না লাগুক, পরের পোস্টে এমিনেমের টপলিস্ট নিয়ে হাজির হবো।
…………………………………………………………………………..
…………………………………………………………………………..

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s